সুবর্ণচরে বকেয়া টাকা আদায়কে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ২ মালামাল ও লক্ষাধিক টাকা লুট

সুবর্ণচরে বকেয়া টাকা আদায়কে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ২ মালামাল ও লক্ষাধিক টাকা লুট

সুবর্ণচর (নোয়াখালী) সংবাদ দাতা ঃ নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার ২নং চরবাটা ইউনিয়নের চর মজিদ গ্রামে সরকারী আশ্রয়ণ প্রকল্পে ১৬ অক্টোবর-২০১৯ বিকাল ৫টায় দোকানের বকেয়া টাকা আদায়কে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ ও লুটের ঘটনা ঘটে।
দোকানের মালিক মিনারা বেগম জানান, পাশর্^বর্তী ১নং দিঘির আবদুল কুদ্দুছের ছেলে মোঃ বাহার থেকে দোকানের বকেয়া টাকা চাইলে সে বকেয়া টাকা না দিয়ে বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে হাতাহাতি ও পরে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে বাহার এর নেতৃত্বে হৃদয়, নিজাম, রাকিব, সেলিম, মোকতার, নাছিমা, সুরমাসহ ১০-১২ জনের সন্ত্রাসীদল দোকানদার মিনারা বেগম ও তার মেয়ে পারভীন আক্তার এর উপর অতর্কিত হামলা করে এবং দোকানের মালামাল লুট ও ক্যাশে থাকা লক্ষাধিক টাকা নিয়ে যায়। এতে মিনারা বেগম ও তার মেয়ে পারভীন গুরুতর আহত হয়। আহত মিনারা বেগম ও তার মেয়েকে স্থানীয় লোকজন চরজব্বর হাসপাতালে ভর্তি করে।
মিনারা বেগম আরোও জানান, আমি সাগরিকা সমাজ উন্নয়ন সংস্থা থেকে এক লক্ষ টাকা ঋণ গ্রহণ করে দোকানের ক্যাশে রেখে ছিলাম। হামলাকারীরা আমার ঋণের বিষয়টি আগে থেকে জানতো। তারা বকেয়া টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে পরিকল্পিতভাবে আমার উপর অতর্কিত হামলা করে দোকান ভাংচুর করে আমাকে এবং আমার মেয়েকে বেদম মেরে আহত করে আমার ঋণের টাকা ও দোকানের ক্যাশে থাকা প্রায় ৪০০০ টাকা নিয়ে যায়।
প্রত্যক্ষদর্শী স্বপন, হাসান জানান, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ বিকাল বেলা মিনারা বেগম এর দোকানে মালপত্র খরিদ করতে গিয়ে দোকানদার এবং বাহার ও দলবলের মধ্যে সংঘর্ষ দেখতে পাই। বাহার এর লোকজনের হাতে দা-চেনী ও লাঠিসোটা দেখে আমরা ভয়ে সরে পড়ি। পরবর্তীতে দোকানদার ও তার মেয়েকে গুরুতর আহত অবস্থায় দেখে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করি।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, গত ৩ বছর যাবত মিনারা বেগম সরকারী আশ্রয়ন প্রকল্পের ৫নং দিঘির ৩নং ব্যারাকের ০৯ ও ১০ নং কক্ষে মুদি ও ষ্টেশনারী দোকান করে আসছে। পাশর্^বর্র্তী ব্যারাকের বাহার তার দোকানে অনেকদিন পর্যন্ত বাকীতে মালপত্র ক্রয় করে। মিনারা বেগম বাহারের নিকট বেকয়া টাকা চাইলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে চরজব্বর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ ইব্রাহিম খলিল জানান, ঘটনাটি শুনেছি, এখনও কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি অভিযোগ ফেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Categories: চট্টগ্রাম

Tags: ,