বুড়িচংয়ে ডাকাতদলের সাথে পুলিশের বন্ধুকযুদ্ধে ৩ ডাকাত নিহত ওসিসহ আহত ৫

বুড়িচংয়ে ডাকাতদলের সাথে পুলিশের বন্ধুকযুদ্ধে ৩ডাকাত নিহত ওসিসহ আহত ৫

কুমিল্লা প্রতিনিধি : কুমিল্লা বুড়িচং উপজেলার পীরযাত্রাপুর ইউনিয়নের কোমাল্লা গ্রামে পুলিশের সঙ্গে ডাকাতদলের বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত সর্দারসহ ৩ আন্তঃজেলা কুখ্যাত ডাকাত নিহত হয়েছে। এঘটনায় বুড়িচং থানার ওসিসহ ৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে । ঘটনাস্থল থেকে ৭টি মুখোশ, একটি পিস্তল, ১টি পাইপগান, ৪রাউন্ড গুলিসহ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।
পুলিশ সূত্র জানায় রোববার দিবাগত রাত আড়াইটায় জেলার বুড়িচং উপজেলার পীরযাত্রাপুর ইউনিয়নের কোমাল্লা গ্রামে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে পুলিশের সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনাটি ঘটে।
বুড়িচং থানার ওসি তদন্ত সাফায়েত হোসেন জানান- রাত আড়াইটায় বুড়িচং উপজেলার কোমাল্লা গ্রামে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ সেখানে যায়।পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতদল পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েঁ। পুলিশও আত্ম রক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোড়েঁ। খবর পেয়ে থানা থেকে পুলিশের আরেকটি টিম ঘটনাস্থলে যায়। এসময় ৩ ডাকাত গুলিবিদ্ধ ও ৫ পুলিশ আহত হয়। গুলিবিদ্ধ ৩ ডাকাত কে কুমেক হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পরবর্তীতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এসআই সহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে ডিবি পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ্য করে ডাকাতদল পালিয়ে যায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল,৪ রাউন্ড গুলি, একটি পাইপগান,২টি ছোড়াঁ, ১টি ডেগার,৭টি মুখোশ, টর্চ ২টি, ৩টি স্কু ডাইভার, ৩টি মোবাইল, ১টি জিআই পাইপ ও গুলির খোসা উদ্ধার করে।
পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহতরা হলেন- ডাকাত অলি মিয়া(৪২), বুড়িচং উপজেলার জগতপুর এলাকার মৃত আবুল হাশেমের ছেলে, বাবুল মিয়া(৩৮) দেবিদ্বার উপজেলার চরবাকর এলাকার জয়নাল আবেদীনের ছেলে ও এরশাদ মিয়া(২৬), ব্রাহ্মনপাড়া উপজেলার গোপাল নগরের তাজুল ইসলামের ছেলে। এসময় আহতরা হলেন- বুড়িচং থানার ওসি আকুল চন্দ্র বিশ্বাস, এস আই মো: মোয়াজ্জেম, এ এস আই মহিউদ্দিন, এস আই পুষ্প বরণ চাকমা ও এক পুলিশ কনস্টেবল। নিহত ডাকাতদের বিরুদ্ধে বুড়িচং থানায় ডাকাতিসহ বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে।

Categories: কুমিল্লা

Tags: