ডিএমপি কমিশনার হলেন শফিকুল ইসলাম

 নিজস্ব প্রতিনিধি : ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন অতিরিক্ত আইজিপি মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম। বুধবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে তাকে এই দায়িত্ব দেওয়া হয়।

সর্বশেষ তিনি সিআইডি প্রধানের দায়িত্ব পালন করেন। ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়ার দায়িত্বের মেয়াদ আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। তার মেয়াদ শেষ হলে ১৪ সেপ্টেম্বর স্থলাভিষিক্ত হবেন শফিকুল ইসলাম।

মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা থানার নওদাবন্ড বিল দোয়ারপাড়া গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ১৯৬২ খ্রিষ্টাব্দে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম মো. শওকত আলী ও মায়ের নাম বেগম সুফিয়া খাতুন।

তিনি অতিরিক্তি পুলিশ কমিশনার এবং পুলিশ কমিশনার হিসেবে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। অত্যন্ত দক্ষতা ও সুনামের সঙ্গে তিনি ডিআইজি, চট্টগ্রাম রেঞ্জ এবং ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

২০১৭ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর তিনি পদন্নোতি প্রাপ্ত হয়ে অ্যাডিশনাল আইজিপি হিসেবে এন্টি টেররিজম ইউনিট, ঢাকায় যোগদান করেন। ২০১৮ সালের ২০ নভেম্বর অ্যাডিশনাল আইজিপি হিসাবে পুলিশ হেডকোয়ার্টাসে এবং সর্বশেষ তিনি গত ২০১৯ সালের ১৬ মে অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) বাংলাদেশ পুলিশে প্রধান হিসেবে যোগদান করেন।

কর্মক্ষেত্রে অনন্য পেশাদারিত্ব, সততা ও সুনিপুণ দক্ষতার স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি পরপর দুইবার বাংলাদেশ পুলিশের সর্বোচ্চ পুরস্কার বিপিএম পদক লাভ করেন। ২০১৪ সালে ডিআইজি, চট্টগ্রাম রেঞ্জ এবং ২০১৭ সালে ডিআইজি, ঢাকা রেঞ্জে দায়িত্বপালন কালে তিনি এই পদক লাভ করেন।

চাকরিজীবনে তিনি বুনিয়াদী কোর্স, ওরিয়েনটেশন কোর্স, এইড-টু-গুড ইনভেস্টিগেশন, কমান্ড অফিসার্স ইনভেস্টিগেশন অ্যান্ড কোর্ট কোর্স, সার্ভে অ্যান্ড সেটেলম্যান্ট ট্রেনিং, ন্যাশনাল অ্যান্ড ইকোনোমিক ক্রাইম কোর্স, সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট কোর্স, পেশাগত ডেভেলপমেন্ট প্রোগামসহ দেশে-বিদেশে গুরুত্বপূর্ণ কোর্স সম্পন্ন করেন ।

শিক্ষা জীবনে তিনি আলমডাঙ্গা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় হতে এসএসসি এবং আলমডাঙ্গা ডিগ্রি কলেজ হতে এইচএসসি পাস করেন এবং শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হতে এগ্রিকালচার বিষয়ে কৃতিত্বের সঙ্গে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করেন। ছাত্রজীবনে তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

শফিকুল ইসলাম ৮ম বিসিএস এর মাধ্যমে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন। কর্মজীবনের শুরুতে তিনি এএসপি হিসেবে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ, খাগড়াছড়ি জেলা ও মৌলভীবাজার জেলায় সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

পদোন্নতিক্রমে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদে খাগড়াছড়ি জেলা ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখেন। এরপর তিনি পুলিশ সুপার হিসেবে ৭ এপিবিএন-পটুয়াখালী জেলা, ২ এপিবিএন-সুনামগঞ্জ জেলা, কুমিল্লা জেলায় অত্যন্ত দক্ষতা ও পেশাদারিত্বের সঙ্গে তার উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করেন।

অ্যাডিশনাল আইজিপি মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বিপিএম (বার) ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত। তার সহধর্মিণী খাদিজাতুল কুবরা একজন গৃহিণী।

এছাড়াও তিনি সাবিহা শ্রাবন্তি ইসলাম ও সুরাইয়া শেমন্তী ইসলাম নামে দুই কন্যা সন্তানের গর্বিত জনক।

উল্লেখ্য, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)- এর যাত্রা শুরু হয় ১৯৭৬ সালের ১ ফেব্রুয়ারি। ডিএমপি গঠনের আগে ঢাকা জেলা পুলিশ এ শহরের নাগরিক শৃঙ্খলার বিষয়টি দেখভাল করত। বর্তমানে ডিএমপির অধীনে মোট ৫০টি থানা আছে।

Categories: আন্তর্জাতিক,জাতীয়,টপ নিউজ,প্রধান নিউজ,সারা দেশ

Tags: