আ’লীগ নেতার নামে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলা

আ’লীগ নেতার নামে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলা

স্টাফ রিপোর্টার : সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে মামলা হয়েছে। আমিনুল ইসলাম উপজেলা সদর ইউনিয়নের ভাটি গ্রামের প্রয়াত আবদুল মালিকের ছেলে।

আর এই মালিক তাহিরপুর থানা (তৎকালীন থানা) শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন। মঙ্গলবার প্রবীণ মুক্তিযোদ্ধা সুজাফর আলী সুনামগঞ্জের তাহিরপুর জোন আমল গ্রহণকারী বিচারিক হাকিম আদালতে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলায় উপজেলার গোলকপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রৌফসহ একাধিক মুক্তিযোদ্ধাকে সাক্ষী করা হয়েছে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্ত ও পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নিতে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে পাঠিয়েছেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, আসামি আমিনুল ইসলাম চিহ্নিত খুনি, লুটেরা ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী পরিবারের সন্তান। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে তার পিতার নেতৃত্বে তাদের পরিবারের সদস্যরা এলাকায় লুটপাট, হত্যা, ধর্ষণসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের সঙ্গে জড়িত ছিল।

আসামির পিতা আবদুল মালিক (মৃত) ‘৭১-এ মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে তাহিরপুরে শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়, একাত্তরের ৭ জুলাই পাক বাহিনীর সঙ্গে ৫নং সেক্টরের ট্যাকেরঘাট ৪নং সাব সেক্টরের মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে পাক বাহিনীর গোলাগুলি হয়।

এ সময় আমিনুল ইসলাম ও তার পিতা আবদুল মালিক পাক বাহিনীর সঙ্গে থেকে মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হককে হত্যায় সহযোগিতা করেন।

সিরাজুল হককে হত্যার পর পিতা-পুত্র মিলে আনন্দ উল্লাস করেন। উল্লেখ্য, উপজেলার ট্যাকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্পে শহীদ সিরাজ বীরউত্তমের সমাধি রয়েছে।

মামলার সাক্ষীরা অভিযোগ করেন, আমিনুল তার নিজের ও পরিবারের অপকর্ম ধামাচাপা দিতে আসামি আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশ করে।

Categories: সিলেট

Tags: