চান্দিনায় সীমাহীন লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ জনজীবন ; সংস্কারের অজুহাত পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের

চান্দিনায় সীমাহীন লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ জনজীবন ; সংস্কারের অজুহাত পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের

চান্দিনা প্রতিনিধি : চান্দিনায় সীমাহীন লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে জনজীবন। অনিয়মতান্ত্রিক লোডশেডিং এর কারণে দুর্ভোগে পড়েছেন কর্মজীবী, ছাত্র-ছাত্রী, রোগী ও সাধারণ মানুষ। গত ১০-১২ দিন ধরেই সময়ে-অসময়ে লোডশেডিং হচ্ছে। উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে দিনে-রাতে ৭-৮ ঘন্টার বেশি বিদ্যুৎ পাওয়া যায় না বলে অভিযোগ উঠেছে। চান্দিনা উপজেলা সদরে গত ১ আগস্ট থেকেই দিনের বেলায় ৩-৪ ঘন্টার বেশি বিদ্যুৎ পাওয়া যায় না।

মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) ভোর থেকেই বিদ্যুৎ বিভ্রাট ছিলো। দুপুর আড়াইটায় লোডশেডিং শুরু হয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বিদ্যুৎ আসে। এতে আর্থিকভাবে চরম ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। লাইন সংস্কার কাজের অজুহাতে সপ্তাহ ধরেই বিদ্যুৎ বিভ্রাট করে যাচ্ছে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি কর্তৃপক্ষ।

এদিকে গত কয়েকদিন ধরে তীব্র দাবদাহ এর সাথে অনিয়মতান্ত্রিক লোডশেডিং যোগ হওয়ায় মানুষের নাভিশ্বাস হয়ে পড়েছে। লোডশেডিং এর এই অবস্থা থেকে উত্তোরণে কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর দৃশ্যমান কোন পদক্ষেপ নেই।

অপরদিকে গত সোমবার (৫ আগস্ট) চান্দিনা উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত মাসিক আইন শৃঙ্খলা ও সমন্বয় সভায় সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এম.পি অনিয়মতান্ত্রিক লোডশেডিং এর বিষয়ে কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর একজন এজিএম এর নিকট জানতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে কোন সদোত্তর দিতে পারেন নি। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশনা দেন সংসদ সদস্য।

জনতা ব্যাংক চান্দিনা সমবায় কর্পোরেট শাখার ব্যবস্থাপক মো. রফিকুল ইসলাম বলেন- ‘এক সপ্তাহ ধরে ভয়াবহ লোডশেডিং চলছে। কি কারণে হচ্ছে কেউ জানে না। বিদ্যুৎ অফিসে ফোন করেও কোন লাভ হয় না।’

মাইজখার গ্রামের মাওলানা আবদুল মালেক জানান, ‘প্রতিদিন ভোর থেকেই বিদ্যুৎ বন্ধ থাকে। দিনে মাঝে মধ্যে বিদ্যুৎ পাওয়া যায়। কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ অফিসে যোগাযোগ করলে বলে লাইনে কাজ চলছে, চালু হয়ে যাবে।’

পৌরসভার বেলাশ্বর গ্রামের মিজানুর রহমান জানান, ‘বিভিন্ন স্কুলে পরীক্ষা চলছে। বিদ্যুৎ বিভ্রাটে ছেলে-মেয়েদের লেখা-পড়া বিঘ্ন ঘটছে। কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর অভিযোগ কেন্দ্রে অসংখ্যবার চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয় না। লাইন শুধু বিজি পাওয়া যায়।’

মঙ্গলবারের লোডশেডিং এর বিষয়ে কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর এজিএম তৌহিদুল আলম বলেন- ‘জাতীয় গ্রিডে লাইন ফল্ট করেছে। মেরামত কাজ চলছে এজন্য বিদ্যুৎ বন্ধ ছিল।’

এব্যাপারে কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর জিএম প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ‘চান্দিনা সদরে একটি ফিডার লাইন আছে। যা লোড নিতে পারে না। গত কয়েকদিন ধরেই ডাবল ফিডার নির্মাণ এর কাজ চলছে। এজন্য মাঝে মাঝে সাটডাউন নিতে হয়। বুধবার থেকে আর বিদ্যুতের সমস্যা থাকবে না। ঈদের আগে আর কাজ করা হবে না।’

Categories: কুমিল্লা

Tags: