শ্রীমঙ্গলে কিশোর সন্ত্রাসী স্টেপ সাগর ও দ্বীপ কে আটক

শ্রীমঙ্গলে কিশোর সন্ত্রাসী স্টেপ সাগর ও দ্বীপ কে আটক

মো.জহিরুল ইসলাম,স্টাফ রিপোর্টার : মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের কলেজ শিক্ষার্থী ঈমানী হোসেন অন্তরকে হত্যাচেষ্টা মামলার প্রধান অভিযুক্ত সাগর মিয়া (১৮) ও তার সহযোগী দ¦ীপকে গ্রেপ্তার করেছে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ।
সোমবার বিকালে মাধবপুর উপজেলার তেলিয়াপাড়ার নোহাটি এলাকার তার এক আত্বীয় বাড়ী থেকে স্টেফ সাগরকে গ্রেপ্তার করা হয়।সাথে আটক করা হয় তার সহযোগী দ্বীপ সাগর দেব কে ।
ঘটনার পর এর আগে সাগর ও জহিরূল ইসলাম জুনূ কে আটক করা হয়। এ ঘটনায় মোট ৪ জন কে আটক করেছে পুলিশ।
তবে কি কারনে এঘটনাটি ঘটেছে তা এখনোও অজানা রয়ে গেল।স্থানীয়রা ধারণা করছে কোন মেয়ে সক্রাংন্ত ঘটনা হতে পারে এটি। স্টেপ সাগর যখন নয়নকে স্টেপ করে তার পর উচ্চ স্বরে রাস্তাতে বাইকে বসে বলে এ ঘটনা নিয়ে যে কথা বল্লবে ভবিষ্যতে তার ক্ষতি হবে বলে হুশিয়ারী করে দেয়।
পুলিশ জানায়, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ) সার্কেল আশরাফুজ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সাগর ও দ¦ীপকে গ্রেপ্তার করে। এদিকে সাগরকে গ্রেপ্তারের পর তার দেয়া তথ্যমতে অভিযান চালিয়ে শ্রীমঙ্গলের গুহ রোডের বনশ্রী নার্সারি থেকে হামলায় ব্যবহৃত কয়েকটি দেশীয় একটি ডেগার, দুইটি রানদা, তিনটি ছোট ষ্টেপ চাকু অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।
পরে তাৎক্ষনিক এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেল)আশরাফুজ্জামান বলেন, “উঠতি কিশোরদের একটি ভয়ংকর গেংগ যেটা আমাদের শ্রীমঙ্গলের জনগণের জন্য আতংকের ছিল তাদের আমরা আটক করতে সক্ষম হয়েছি এবং তাদের দেয়া তথ্যমতে আমরা তাদের ব্যবহৃত অস্ত্রগুলোও উদ্ধার করেছি।
আজ দুপুরে স্টেফ সাগর ও দ্বীপ সাগর দেব কে মৌলভীবাজার কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য,গত ২৮ জুন সন্ধ্যায় শ্রীমঙ্গল শহরের কলেজ সড়কের স্টাডি লিংক কোচিংগের সামনে ঈমানী হোসেন অন্তর কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক ভাবে জখম কওে ষ্টেফ সাগর।সেই ঘটনায় আহত অন্তরের ভাই মোশারফ হোসেন রাজ বাদী হয়ে শ্রীমঙ্গল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। আহত অন্তর এখনও ঢাকার এ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে।

Categories: সিলেট

Tags: