লাকসাম জংশনে ধর্ষণকারী ভূয়া ডাক্তার মীর হোসেন র্যা্বের হাতে আটক

লাকসাম জংশনে ধর্ষণকারী ভূয়া ডাক্তার মীর হোসেন র্যা্বের হাতে আটক

এম এ কাদের অপুঃ কুমিল্লা জেলার লাকসাম থানাধীন লাকসাম জংশনের কথিত ভূয়া ডাক্তার মীর হোসেন কে তারই কর্মচারী কে টানা ৪ মাস ধর্ষণ করার অভিযোগে কুমিল্লা র্যা ব ১১ এর কোম্পানী কমান্ডার প্রনব কুমারের নেতৃত্বে তাকে আটক করা হয়।
র্যা বের উপস্থিতি টের পেয়ে কৌশলে পালিয়ে যাওয়ার সময় আরেক র্যালব সদস্য তাকে মটর সাইকেল থেকে নামিয়ে তার চেম্বারে নিয়ে আসে।
ডাক্তার মীর হোসেনের চেম্বারে র্যা।ব তল্লাশি চালিয়ে কয়েক প্যাকেট কনডম ও কয়েকটা যৌন উত্তেজক মেডিসিন পাওয়া গেছে এবং তার ব্যবহারিত ল্যাপটপ ও মোবাইল জব্দ করা হয়।
ডাক্তারের প্রকৃত কোন সনদ পত্র র্যা ব কে দেখাইতে পারেনাই বলে তিনি যে ডাক্তারের নামে প্রতারনা করতেন সকল রোগীদের সাথে তার প্রমাণ ও পাওয়া গেলো এই অভিযানে।
গত কিছুদিন আগেও এই ভূয়া ডাক্তারকে কুমিল্লা জেলার মনোহরগঞ্জ উপজেলার নাথের পেটুয়া এলাকার নাম প্রকাশে অনিচ্চুক এক মেয়ের সাথে হাতে নাতে ধরা খেয়ে গণধোলাই সহ থানা পুলিশ করার অভিযোগ ও পাওয়া যায়।
অভিযোগ কারিনীর লিখিত ও মৌখিক বক্তব্য শুনে কুমিল্লা র্যাণব ১১ এর কোম্পানী কমান্ডার আজ ১০ই জুলাই বুধবার দুপুর ১২.৩০ মিনিটের সময় অভিযান পরিচালনা করেন।
ধর্ষণকারীর পক্ষে অনেকেই মোবাইলে সাংবাদিককে হুমকি প্রদান করেন, যাতে এই ব্যাপারে কোন প্রকার কোন নিউজ বা আইনি ব্যবস্থা গ্রহন না করা হয়।
অভিযোগকারিণী জানান, আমাকে সে টানা ৪ মাস ব্ল্যাকমেইল করে একেরপর এক ধর্ষণ করে যাচ্ছিলো, আমি আমার পরিবারের সম্মানের কথা চিন্তা করে কাউকেই বলতে পারিনাই।
নারায়নগঞ্জে র্যা বের অভিযান গুলো দেখার পর ও লাকসামের এক সাংবাদিকের সহযোগীতায় আমার মনে সাহস হইলে আমি সরাসরি র্যা ব অফিসে গিয়ে তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করি। আমার অভিযোগের ভিত্তিতে আজ তাকে গ্রেফতার করে র্যািব-১১ কুমিল্লা।
আমি তার সঠিক বিচার চাই এবং আমার জীবন নষ্ট করার কারনে আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ সকলের নিকট বিনীত আবেদন করছি যে আর যেনো কোন মেয়েকে এই ভাবে তার হাতে ধর্ষিতা না হতে হয় যেই জন্য আইনের সর্বচ্চো শাস্তি কামনা করছি।
র্যা ব-১১ কুমিল্লার কোম্পানী কমান্ডার প্রনব কুমার জানান, তার বিরুদ্ধে লিখিত ও মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা তাকে নিয়ে যাচ্ছি। আইন তার নিজের গতিতে চলবে।
এইদিকে খবর পেয়ে লাকসাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ কে এম সাইফুল ইসলাম ও লাকসাম প্রেস ক্লাবের সভাপতি তাবারক উল্লাহ্‌ কায়েস ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
এই ধর্ষণকারীর সহকারীদের নিয়ে ধারাবাহিক ভাবে
দ্বিতীর পর্বের জন্য অপেক্ষা করুন ……

Categories: কুমিল্লা

Tags: