দূষণ ও দখলদারদের হাত থেকে বালু নদী যে কোন মুল্যে বাঁচাতে হবে

 

 

সীমানা নির্ধারণ করেই উচ্ছেদ অভিযান, দখলকারীরা যত বড় ক্ষমতাশীনই হোকনা কেন কোন ছাড় দেয়া হবেনা, বললেন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান হাওলাদার..


নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি এম এইচ বিজয় : যে কোন মুল্যে নদী বাঁচাতে হবে। নদী বাঁচলে দেশ বাঁচবে। যারা নদী দখল ও দূষণ করেছেন, তারা যত প্রভাবশালীই হোকনা কেন কোন ছাড় দেয়া হবেনা বলে মন্তব্য করেন, নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান হাওলাদার । এসময় তিনি আরো বলেন, আমরা সিএস রেকর্ড দেখে সীমানা নির্ধারণ করে নদী দখল মুক্ত কার্যক্রম শুরু করবো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে শীগ্রই দখল ও দুষণ মুক্ত করে নদীকে পুর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনা হবে। তাই সংশ্লিষ্ট সকলকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেন তিনি। দুই দিন ব্যাপি নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জের বালু নদী পরির্দশনে এসে দুপুরে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, ভূমি রেকর্ড ও জরীপ অধিদপ্তরের উপ-সচিব শাহাদাত হোসেন, ঢাকা জেলার এডিসি (রেভিনিউ) আবুল ফাতে মোহাম্মদ সফিকুল ইসলাম, পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সাইফুল আশ্রাফ, পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুল মতিন, রাজউকের অথরাইজড কর্মর্কতা মাকিদ এহসান, বিআইডবিøউটি-এর ট্রেসার আব্দুল হাই,রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মমতাজ বেগম, লেখক কলামিস্ট গবেষক লায়ন মীর আব্দুল আলীম, কালীগঞ্জ উপজেলার ইউএনও শিবনি সফিক, রূপগঞ্জের ভূমি অফিসার তরিকুল ইসলাম, তেজগাঁও সার্কেলের ভূমি অফিসার এবিএম কুদরত ই খুদা, রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের একটি প্রতিনিধি দল সহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা।
পরিদর্শণ কালে দেখা গেছে, ৫৪ স্থানে দখল ও ২৩ স্থানে দুষণ করছে প্রভাবশালীরা।

Categories: জাতীয়

Tags: ,,