বরগুনার তালতলী উপজেলায় নৌকার সমর্থকদের হামলায় আহত ২০

বরগুনার তালতলী উপজেলায় নৌকার সমর্থকদের হামলায় আহত ২০

বরগুনা প্রতিনিধিঃ রগুনার তালতলী উপজেলা নির্বাচনে নৌকার সমর্থকদের হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর ২০ জন কর্মী আহত হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মোবাইল কোটের ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে গেলে তার গাড়ি ভাঙচুর করেন নৌকার সমর্থকরা।

বুধবার (১২ জুন) রাত ৯টার দিকে উপজেলার নিদ্ররা স্লুইসে এ ঘটনা ঘটে। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এ হামলা চলে।

স্থানীয় জানা যায়, তালতলী উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নিশানবাড়িয়া ও সোনাকাটা ইউনিয়নের নিদ্রারচর স্লুইস এলাকায় নৌকার সমর্থকরা স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের অফিসে ভাঙচুর করে। এতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকরা এলকার বিভিন্ন ঘরে আশ্রায় নিলে সেই বাড়িতে হামলা চালায় নৌকার সমর্থকরা। এই ঘটনায় আনারস প্রতীকের ২০ কর্মী আহত হয় বলে জানা যায়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই নিয়ে এলাকা জুড়ে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

পরে নির্বাচনী মোবাইল কোর্ট পরিচালনার দায়িত্বে থাকা ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসেন আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ঘটনাস্থল থেকে নিয়ে আসার পথে নৌকার সমর্থকরা তার গাড়ি গতিরোধ করেন। পরে ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িসহ আহতদের বহন করা দুইটি গাড়ি ভাঙচুর করেন নৌকার সমর্থকরা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. সহিদ আকন বলেন, ‘কবীর আকনের নেতৃত্বে ৭০-৮০ সন্ত্রাসীরা আনারস প্রতীকের অফিসে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা ও ভাঙচুর করেন। হামলার ভয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীরা এলাকার বিভিন্ন ঘরে আশ্রয় নেয়। কিন্তু ঘরে ঢুকেও কমপক্ষে ২০ জনকে আহত করে তারা।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসেন বলেন, ‘নৌকার সমর্থকদের হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর আহত কর্মীদের ঘটনাস্থল থেকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসার সময়, আমার গাড়ি গতিরোধ করে তারা। পরে আমার বহরে থাকা স্বতন্ত্র প্রার্থী গাড়িসহ আমার গাড়ি ভাঙচুর করেন।’

তালতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপায়ন দাস শুভ জানান, মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ির ভাঙচুর করা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে। উল্লেখ্য, ১৮ জুন তালতলী উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Categories: বরিশাল

Tags: