আজ কার্ডিফে মুখোমুখি হচ্ছে নিউজিল্যান্ড-শ্রীলঙ্কা

আজ কার্ডিফে মুখোমুখি হচ্ছে নিউজিল্যান্ড-শ্রীলঙ্কা

অনলাইন ডেস্ক : শেষ চারে ছয়বার হারের পর চার বছর আগে বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেছিল তারা। সেবার মেলবোর্নে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারে ট্রফি অধরাই থেকেই যায়। আবার যখন বিশ্বকাপ খেলতে এসেছে নিউজিল্যান্ড, সেই সময়েও তাদের কেউ ফেভারিট ভাবছে না। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে আজ শনিবার মাঠে নামার আগে নিউজিল্যান্ড আলোচনার বাইরে থাকাটাকে ইতিবাচকভাবেই দেখছে।

নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কার খেলাটি হবে কার্ডিফে। বাংলাদেশ সময় সাড়ে তিনটায়। কেন উইলিয়ামসন এবার ব্রেন্ডন ম্যাককালামের শিরোপার কাছাকাছি যাওয়া সে দলটির মূল অংশকে নিয়ে ইংল্যান্ডে এসেছেন। গত বিশ্বকাপের পর নিউজিল্যান্ড বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসে। কিন্তু নিজের মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড ও ভারতের কাছে হারে। তবে ২০১৯ বিশ্বকাপে খেলতে এসে ইতোমধ্যে প্রস্তুতি ম্যাচে ভারতকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে ব্ল্যাক ক্যাপরা।

সাবেক নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটার পেসার জেমস ফ্রাঙ্কলিনের দৃঢ় বিশ্বাস উইলিয়ামসনের দল তাদের প্রথম বিশ্বকাপটির দেখা পেতে পারে। তিনি দ্বাদশ এই বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড একটা ভালো অবস্থায় আছে। কেউই আমাদের সম্পর্কে বেশি কিছু বলছে না। আমরা চিরকালের আন্ডারডগ এবং সেটা আমাদের ভালোভাবেই মানিয়েছে। এখন আমরা যদি আগামী কয়েক সপ্তাহে ভালো নৈপুণ্য দেখাতে পারি, তাহলে নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপ জিততে পারবে।’

রস টেলর সাম্প্রতিক সময়ে ওয়ানডে ক্রিকেটে ভালো ফর্মে আছেন। ২০১৭ সালে তার গড় ছিল ৬০। গেল বছর এটা ছিল ৯০ এরও বেশি। বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে ১২ ও ১০ নম্বরে থাকা উইলিয়ামসন ও মার্টিন গাপটিল নিউজিল্যান্ড ব্যাটিংয়ের অপর দুই স্তম্ভ। ট্রেন্ট বোল্ট তাদের নজরকাড়া বোলিং আক্রমণের নেতৃত্বে। কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ও টিম সাউদি আছেন তাকে সঙ্গ দেওয়ার জন্য। স্পিনার ইস সোধি ও মিশেল সেন্টনার এই বোলিংয়ে বৈচিত্র্য দিয়ে থাকেন।

শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে নিউজিল্যান্ড ফেভারিট হিসেবেই শুরু করবে। কারণ ১৯৯৬ -এর বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা বর্তমানে ওয়ানডে ক্রিকেট র‌্যাংকিংয়ে নবম স্থানে গড়িয়ে গেছে। নবনিযুক্ত অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নেও ওয়ানডেতে এসেছেন প্রায় চার বছর পর। তার জন্য কাজটাও কঠিন। কেননা গত ৯টি ওয়ানডের মধ্যে আটটিতে হারা দলকে টেনে তোলার দায়িত্ব তার কাঁধে।

অবশ্য দ্বীপদেশটির বিশ্বকাপ রেকর্ড ভালো। একবার চ্যাম্পিয়ন হওয়া ছাড়াও লঙ্কানরা দুবার রানার্স আপ হয়েছিল। এছাড়াও একবার সেমিফাইনালে খেলেছিল। সাবেক অধিনায়ক মাহেলা জয়াবর্ধনা বলেন, ‘শ্রীলঙ্কা বিশ্বকাপে ভালো করার জন্য একটা পথ খুঁজে নেয়। হ্যাঁ, এটা ঠিক যে দলটাতে কিছুটা ভিন্ন পরিবর্তন আছে। অধিনায়ক নিজেই অনেকদিন ওয়ানডে খেলেনি। কিন্তু সে দারুণ খেলোয়াড়। এছাড়াও আছে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, কুসল পেরেরা ও কুসল মেন্ডিসের মতো মেধাবিরা। দলটিতে জেতানোর মতো খেলোয়াড়ও আছে।’

জয়াবর্ধনা মনে করেন, ‘চার পাঁচটি জয়ে সেমিফাইনালে যাওয়া সম্ভব। আমি এখনো মনে করি তাদের ভালো সুযোগ আছে।’

Categories: খেলাধুলা,প্রধান নিউজ

Tags: