বুড়িচংয়ে টানটান উত্তেজনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ট্রহল শুরু

বুড়িচংয়ে টানটান উত্তেজনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ট্রহল শুরু

বুড়িচং (কুমিল্লা) প্রতিনিধি : আগামীকাল ভোট ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ৪র্থ ধাপের ভোট গ্রহণ চলবে ৩১ তারিখ রবিবার সকাল ৮থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত একটানা চলবে ভোট গ্রহণ। ভোটারদের মাঝে উদ্দিপনা না থাকলেও প্রার্থীদের শিবিরে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনা দেখা গেছে এ উপজেলায়।

তফসিল ঘোষনার পর থেকেই মিছিল মিটিং, মামলা হামালা, ধাওয়া পাল্টাধাওয়া, হুমকি ধমকি বহিষ্কার সংবাদ সম্মেলন ও প্রচার প্রাচারণায় বেশ সরগরম কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা পরিষদের নির্বাচনের মাঠ। শেষ দিকে এসে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে এ উপজেলার ভোটের হাওয়া।

জেলা শহর সংলগ্ন ভারত সীমান্ত এলাকায় অবস্থিত ৯টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত উপজেলাটিতে মোট ৭৪ টি ভোট কেন্দ্রের ৫২১টি বুথে একযোগে চলবে ভোট গ্রহণ। উপজেলায় নারী ও পুরুষ ভোটার সহ মোট ভোটার সংখ্যা ২ লক্ষ১৬ হাজার ৮শত ৮২জন। এর মাঝে ১ লক্ষ ৬ হাজার ৫ শত ২৮ জন নারী ভোটার।

ভোটার ও ভোটকেন্দ্রের কঠোর নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবে বিজিবির ৪টি প্লাটুন। এছাড়াও সার্বক্ষণিক নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবে অসংখ্য ট্রহল টিম। স্বসস্ত্র র‍্যাব, পুলিশ, ডিবি, আনসার সহ গ্রাম পুলিশ সদস্যদের ইতিমধ্যেই শতভাগ নিরাপত্তা নিশ্চিতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলেও জানায় নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। এছাড়াও ৭ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের তত্ত্বাবধানে সার্বক্ষণিক মনিটরিংয়ে থাকবে সবগুলো ভোট কেন্দ্র। কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা দেখলে তাৎক্ষণিক ব্যাবস্থা নিতে পারবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

নির্বাচনে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে জানিয়ে বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা ইমরুল হাসান বলেন, অবাধ সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষে সকল ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। যার ভোট সে দেবে, জাল ভোট কিংবা কোনরুপ কারচুপি করার কোন সুযোগ থাকবে না।

ইসির এক চিঠিতে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে ওসি আকুল চন্দ্র বিশ্বাস কে। তার স্থলে নবাগত ওসি হিসেবে মো: আনোয়ারুল হক বুড়িচং থানায় যোগদান করেছেন। নির্বাচন নিয়ে তিনি জানান, উপজেলা নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠ ও উৎসব মুখোর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হবে। ভোটাররা যাতে নির্ভয়ে কেন্দ্রে আসতে পারে এবং নির্বিঘ্নে ভোট প্রদান করতে পারে সে বিষয়ে আইনশৃংখলা বাহিনী বদ্ধপরিকর।
বুড়িচং উপজেলায় দুই প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীর একজন আ’লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের বীর এডভোকেট হাশেম খান এবং আনারস প্রতীকে বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক ইউ পি চেয়ারম্যান মোঃ আখলাক হায়দার। দুজনে লড়াই হবে সমান সমান, কেউ কাউকে ছাড় দিতে রাজি নয় উপজেলা আওয়ামীগের সিনিয়র দুই নেতা।
এ দিকে জাতীয় পার্টির মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম বায়েজীদ’কে প্রচার প্রচারনা দেখা যায় নি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত।

একই সাথে প্রচার-প্রচারনায় সরগরম ছিলেন ৩নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সহ মোট ৮ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী । তারা হলেন, মোঃ মতিউর রহমান রুমেল খাঁন(তালা), মতিউর রহমান আলী (চশমা), আলমগীর হোসেন(টিউবওয়েল), মোঃ গোলাম ফারুক(বই), মোহাম্মদ জসিম উোদ্দিন(মাইক), মোহাম্মদ ইকবাল অৌহোসেন (উড়োজাহাজ), মহিলাদের মধ্যে নাদেরা পারভীন আক্তার (প্রজাপতি), পান্না আক্তার(কলস), সালমা আক্তার পারভীন(ফুটবল)।
তারা সবাই আ’লীগের সাথে জড়িত। তারা নিজকে নির্বাচনে জয়ী হতে তাদের প্রচারনায় ভিন্ন কৌশলে ভোটাদের মন জয়ের চেষ্টা চালিয়েন সবাই।

Categories: কুমিল্লা,নির্বাচন,প্রধান নিউজ

Tags: