উপজেলা পরিষদ নির্বাচন; বুড়িচং আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ ভাংচুর; আহত-৩

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন; বুড়িচং আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ ভাংচুর; আহত-৩

নিজস্ব প্রতিবেদক : কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা নির্বাচন নিয়ে আ’লীগ ও দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মাঝে রোববার দুপুরে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এর আগে নৌকা প্রার্থীর মিছিল থেকে সমর্থকরা বিদ্রোহী প্রার্থীর ৩/৪ জন সমর্থককে মারধর করে ।
স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বুড়িচং উপজেলা থেকে আ’লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ছাড়াও একজন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। বুড়িচং আ’লীগ দলীয় নৌকার প্রার্থী অ্যাড. আবুল হাশেম খান গতকাল রোববার দুপুরে বুড়িচং উপজেলা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ে নির্বাচন উপলক্ষে আ’লীগের কর্মী সভা শেষে তার নেতা-কর্মীদের নিয়ে মিছিল বের করে দুপুর আড়াইটায়। এসময় বুড়িচং উপজেলা সদর বাজারে মোসলেম খান শপিং সেন্টারের কাছ দিয়ে অতিক্রমকালে মিছিল থেকে কিছু যুবক বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের আখলাক হায়দারের সমর্থক জিলানীকে টেনে হেচড়ে মিছিলে নিয়ে মারধোর করতে থাকে।
এসময় বিদ্রোহীপ্রার্থীর খান মার্কেটের সামনে অপেক্ষমান ৭/৮ জন কর্মী জিলানীকে উদ্ধার করতে গেলে তাদেরও মারধর করে। আহতের উদ্ধার করে বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
দু’পক্ষের সমর্থকদের মাঝে কয়েক দফা ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া হয়। থানা পুলিশ খবর পেয়ে দু’পক্ষের মাঝে অবস্থান নেয়। এদিকে সম্ভাব্য বিরোধ এড়াতে ঘটনার পরপরই কুমিল্লা থেকে এক প্লাটুন পুলিশ ও ডিবি’র দুটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে টহল জোরদার করেছে। বিষয়টি জানতে অ্যাড,আবুল হাসেম খানের সাথে মোবাইল ফোনে বার বার যোগাযোগ করলে তিনি ফোন রিসিভ করেনি।
বিদ্রোহী প্রার্থী আখলাক হায়দার বলেন, হাসেম খানের লোকজন মিছিল থেকে আমার লোকজনের উপর হামলা করেছে। আমার ৩ কর্মী জিলানী ও অলি,শান্ত নামের দু’জনকে আহত করেছে।
এদিকে বিদ্রোহী প্রার্থী আখলাক হায়দার সমর্্থক সাবেক ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার বাছির খাঁন জানান অ্যাড. হাশেম খাঁনের মিছিলটি আমার মার্কেটের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় আমার কর্মী জিলানীকে টেনে হিছেড়ে নেওয়ার সময় অন্য উদ্ধারে চেষ্ঠা করে।তখন তাদের উপর ওই গ্রুপের রানা সহ আরো কয়েকজন হামলা চালায় এবং আমার দোকান ভাংচুর করে।।
এব্যাপারে বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আকুল চন্দ্র বিশ্বাস বলেন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে উভয় গ্রুপের মাঝে এসে নিয়ন্ত্রনে আনি। তবে পরিস্তিতি শান্তি শৃংঙ্খলা বজায় রাখতে কুমিল্লা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ও ডিবি পুলিশ উপজেলা সদরে গুরুত্ব পূর্ন বিভিন্ন পয়েন্টে মোতায়েন কার হয়েছে।

Categories: নির্বাচন,প্রধান নিউজ

Tags: