বিভেদের রাজনীতি নয়, শক্তিশালী উপজেলা পরিষদ চাই–উপাধ্যক্ষ এ.টি.এম সাইফুল ইসলাম মাসুম

বিভেদের রাজনীতি নয়, শক্তিশালী উপজেলা পরিষদ চাই–উপাধ্যক্ষ এ.টি.এম সাইফুল ইসলাম মাসুম

অরুন আচার্য : যতদুর জানাগেছে বর্তমান নির্বাচন কমিশন স্থানীয় সকল প্রকার নির্বাচন সময়মতো অনুষ্ঠানের ব্যাপারে খুবই তৎপর। সম্প্রতি সম্পন্ন করেছেন জাতীয় সংসদ নির্বাচন, যা ছিল অভূতপূর্ব। বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের বলেন,চলতি বছরের মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকে ধাপে ধাপে উপজেলা নির্বাচন শুরু হবে ।
সচিব আরো বলেন, মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকে ধাপে ধাপে সারাদেশে পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন শুরু হবে।
প্রবাসীদের ভোটার করার বিষয়ে সচিব বলেন, আগামী এপ্রিল মাস থেকে প্রবাসীদের ভোটার করার কাজ শুরু করা হবে।
এক্ষেত্রে প্রথমে পাইলট প্রকল্প হিসেবে সিঙ্গাপুরে যেসব বাংলাদেশিরা থাকেন তাদেরকে ভোটার করা হবে। ৫-৭ দিনের মধ্যে তাদেরকে ভোটার করতে একটি টিম সিঙ্গাপুরে যাবে। এরপর দুবাইতে প্রবাসীদের ভোটার করার কার্যক্রম শুরু করা হবে।
আসন্ন উপজেলা নির্বাচন নিয়ে কাথা বলতে চাইলে দক্ষিন দেবিদ্বার’র মোহনপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা এবং সতন্ত্র ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থি সাংবাদিক এ.টি.এম সাইফুল ইসলাম মাসুম বলেন এবারের উপজেলা নির্বাচন কী জাতীয় ভাবনার জন্ম দেয় বিচক্ষণ রাজনীতিবিদেরাই বলতে পারেন। উদ্দেশ্য যাই হোক না কেন, সময়মতো নির্বাচন হওয়াই বাঞ্ছনীয় এবং এর ফলে স্থানীয় সরকারসমূহ সচল থাকে এবং এভাবে নির্বাচিতরা যেন এলাকার উন্নয়ন ও জনগণের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতে পারেন ।

তিনি আরো বলেন উপজেলা পরিষদ শক্তিশালী করতে হলে শুধু সুষ্ঠু নির্বাচন যথেষ্ট নয়, স্থানীয় সরকারকে সকল নীতিনির্ধারণের ক্ষমতা দান করে ‘মিনি’ সরকারের প্রতিচ্ছবি হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তবেই কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি জনগণের আকর্ষণ দূরীভূত হবে। স্বনির্ভর অর্থনীতি ও স্থানীয় অবকাঠমো নির্মাণের মাধ্যমে এলাকার নিজস্ব সংস্কৃতির বিকাশ ঘটানো সম্ভব হবে। রাজধানীকেন্দ্রিক রাজনীতি, নগরভিত্তিক বসবাস, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবার জন্যে শহরমুখী হওয়া থেকে বিরত থাকতে পারলে জনজীবনে দুর্গতি অনেকাংশে হ্রাস পাবে। জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাস তৃণমূলে প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে।
সাংবাদিক মাসুম আরো বলেন এ কথা সত্যি যে একটি শক্তিশালী উপজেলা পরিষদ সাম্প্রদায়িকতা নির্মূল, নারী নির্যাতন প্রতিরোধ, বাল্যবিবাহ নিরোধ, ভূমিদস্যুদের উপদ্রব বন্ধ এবং হিংসার রাজনীতি প্রতিরোধ করতে সক্ষম হবে। তাছাড়া দেশের অবহেলিত অঞ্চলের উন্নতি সাধনসহ বঞ্চিত জনগণের অগ্রগতির জন্যও অবদান রাখতে পারবে। স্থানীয় সরকারের মাধ্যমে ভূমি প্রশাসন ও ভূমি উন্নয়ন কর্মকাণ্ড পরিচালনা করা, খাসজমি ভূমিহীন চাষীদের মধ্যে বিতরণ, কৃষিতে উৎপাদনের লক্ষ্যে বিনিয়োগ ও উপকরণ বিতরণ, মৎস্য পশুপালন ও পোল্ট্রি শিল্পে উৎকর্ষ আনয়ন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকাণ্ডে গণসচেতনতা বৃদ্ধি, মহিলাদের ক্ষমতায়ন ও নারী নির্যাতন নিবারণ, শিক্ষায় উৎসাহদান, দুগ্ধ উৎপাদন ও সমবায়ের মাধ্যমে পণ্য বিপণনের সুযোগ সৃষ্টি করে দেবিদ্বারকে বিভেদের রাজনীতি নয়, শক্তিশালী উপজেলা পরিষদ ঘঠন করতে চাই।

Categories: কুমিল্লা

Tags: ,