শেষ বিকেলে নাঈম-তাইজুলের অসাধারণ জুটিতে দিন শেষ

শেষ বিকেলে নাঈম-তাইজুলের অসাধারণ জুটিতে দিন শেষ

স্পোর্টস ডেস্ক : চট্টগ্রামে উইন্ডিজদের বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে মাঠের লড়াইয়ে মুখোমুখি হয়েছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ। টপ অর্ডারের চেষ্টায় ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিলেও মিডল অর্ডারদের ব্যর্থতায় রানের গতি কমার পাশাপাশি উইকেটও হারাতে হয় বাংলাদেশকে। তবে লোয়ার অর্ডারে নামা তাইজুল ইসলাম ও অভিষিক্ত নাঈমের জুটিতে কিছুটা প্রতিরোধ গড়েছিল স্বাগতিকরা। অবিচ্ছিন্ন ৫৬ রানের জুটি গড়ে দিন শেষ করেছেন নাঈম ও তাইজুল।

এই জুটিতে ভর করে ৩০০ ছাড়ানোর পর আর বিপদে পড়েনি বাংলাদেশ। তাদের অনবদ্য ৫৬ রানের পার্টনারশিপে প্রথম দিন শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩১৫ রান তুলেলে। খেলা হয়েছে ৮৮ ওভার। এরপর আলো স্বল্পতার কারণে প্রথম দিনের খেলা শেষ ঘোষণা করেন আম্পায়ারদ্বয়। তাইজুল ৩২ ও নাঈম ২৪ রানে অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেছেন।

এর আগে চট্টগ্রামে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন টাইগার দলনায়ক সাকিব আল হাসান। তবে ব্যাটিংয়ে নেমে ভালো কিছু করার আগেই বিদায় নেন সৌম্য সরকার। কিন্তু এরপরই খেলা শুরু করেন মুমিনুল ও ইমরুল। ১০৪ রানের জুটি গড়ার পথে ৪৪ রানে ফিরে যান ইমরুল কায়েস। কিন্তু থেমে থাকেননি মুমিনুল হক। তুলে নিয়েছেন ক্যারিয়ারের অষ্টম শতক। বিরতির পর ব্যাট করতে নেমেই শ্যানন গ্যাব্রিয়েলকে মারতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ১২০ রানে সাজঘরে ফেরেন তিনি। একই ওভারের শেষ বলে লেগ বিফরের ফাঁদে পরে বিদায় নেন মুশফিক।

দলের জন্য ভূমিকা রাখতে ৩৪ রান করেন ইনজুরি থেকে ফেরা সাকিব। তবে তার সহকারী মাহমুদউল্লাহ (৩) হতাশ করেছেন দলকে। মুশফিকের (৪) মতো তিনি ফিরে যান এক অঙ্কের কোটায়। তবে মিঠুন ছিলেন উজ্জ্বল। মুমিনুলকে যোগ্য সঙ্গ দিয়ে ২০ করার পাশাপাশি গড়েছিলেন ৪৮ রানের জুটি।

২৫৯ রানে যখন দলের অষ্টম উইকেট হিসেবে ফিরে গেলেন মিরাজ, তখন মনে হচ্ছিল ৩০০ রানের কোটা পার করতে পারবেনা স্বাগতিকরা। কিন্তু তখনও দিনের বাকি ১৮ ওভার। এই সময়টা নিজেদের ভেলকি দেখিয়ে দিলো অভিষিক্ত নাঈম হাসান ও তাইজুল ইসলাম। লোয়ার অর্ডারে ৫৬ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়ে দলের স্কোর তিনশ পার করেছেন।

সফরকারীদের হয়ে বল হাতে মিডল অর্ডারের ত্রাস ছিলেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। তিনি চার ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়েছন। অন্যদিকে জোমলে ওয়ারিকেন ২টি, বিশু ও রোচ একটি করে উইকেট নেন।

Categories: খেলাধুলা

Tags: